অন্যান্য

প্রে’মের টানে নৌকায় করে ভা’রতে গেল বাংলাদেশী তরুণী, অ’তঃপর…

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বন্ধুত্ব, অ’তঃপর প্রে’ম। আর সেই প্রে’মের টানেই বাংলাদেশি এক তরুণী নৌকায় করে পাড়ি জমান ভা’রতে। বাংলাদেশ থেকে কলকাতা হয়ে উত্তরপ্রদেশের মৌ-তে পৌঁছান ওই তরুণী।

ভা’রতীয় গণমাধ্যমসূত্রে জানা যায়, সেখানে প্রে’মিকের সঙ্গে স্বামী-স্ত্রী’র মতো জীবনযাপন করতে এবং বিয়েকে আইনি ম’র্যাদা দিতে প্রথমে জাল পরিচয় পত্র তৈরি করেন ওই তরুণী। তারপর তা থেকে তৈরি করেন পাসপোর্ট। প্রায় এক বছর পর বিষয়টি পু’লিশের কানে পৌঁছায়। এরপর গত ২১ নভেম্বর সন্ধ্যায় ওই তরুণীর সঙ্গে তাঁর প্রে’মিককেও গ্রে’প্তার করে ভা’রতীয় পু’লিশ।

জানা গেছে, ফারজানা খাতুন (২৬) নামের ওই তরুণী বাংলাদেশের টাঙ্গাইলের বাসিন্দা, কাজ করতেন জর্ডানে। সেখানে থাকতেই ফেসবুকের মাধ্যমে উত্তরপ্রদেশের মৌ-এর কো’পাগঞ্জের বাসিন্দা গুলশান রাজভা’র নামে এক যুবকের সঙ্গে বন্ধুত্ব হয় তাঁর। দুজনের বন্ধুত্ব দ্রুতই প্রে’মে রূপ নেয় এবং তাঁরা বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেন। গত বছরের অক্টোবরে মেয়েটি বাড়িতে এসে বাংলাদেশ থেকে নৌকায় করে পশ্চিমবঙ্গে পালিয়ে যান। সেখান থেকে বাসে চড়ে কলকাতায় যান তিনি। প্রে’মিক গুলশান আগে থেকেই কলকাতায় অ’পেক্ষা করছিলেন তাঁর জন্য।

ফারজানাকে সঙ্গে নিয়ে কো’পাগঞ্জে নিজের বাড়িতে যান ওই যুবক। তরুণীকে স্ত্রী’ হিসেবে পরিচয় দিয়ে সোনা রাজভা’র নামে একটি জাল পরিচয় পত্রও তৈরি করান গুলশান রাজভা’র। এরপর জাল পদ্ধতিতেই বিয়ের হলফনামা’ও পেয়ে যান দুজনে। অ্যাকাউন্ট খোলেন স্থানীয় এসবিআই-ব্যাংকেও। পরে বিদেশে কোথাও চাকরির জন্য তরুণীর ভুয়া পাসপোর্টও তৈরি করা হয়।

এসব ঘটনার প্রায় এক বছর পর স্থানীয় পু’লিশ কর্মক’র্তাদের কাছে অ’ভিযোগ পৌঁছায় উভয়ের বি’রুদ্ধে। বিষয়টি জানতে পেরে পু’লিশের গোয়েন্দা বিভাগকে ত’দন্তে নিযু’ক্ত করা হয়। ত’দন্তে পুরো বিষয়টি সামনে এলে পু’লিশও হতবাক হয়ে যায়। এরপর গত ২১ নভেম্বর সন্ধ্যায় দুজনকে আ’ট’ক করে পু’লিশ।উত্তরপ্রদেশ পু’লিশ সুপার সুশীল ঘুলে জানিয়েছেন, দুজনেই কোথাও পালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

ব্রহ্মস্থান এলাকার ট্যাক্সি স্ট্যান্ডের কাছ থেকে তাঁদের দুজনকে আ’ট’ক করে নগর কোতয়ালি থা’নার পু’লিশ। তাঁদের কাছ থেকে দুটি জাল ভা’রতীয় পাসপোর্ট, একটি বাংলাদেশের পাসপোর্ট, জাল পরিচয় পত্র, ব্যাংকের পাসবুক এবং জাল বিয়ের হলফনামা উ’দ্ধার করা হয়। সূত্র- হিন্দুস্তান টাইমস।

Back to top button