বিনোদন

শিমুর হত্যাকারীকে না ধরলে আমার কি হইতো চিন্তা করেন একবার : জায়েদ খান

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) সকালে কেরানীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

এদিকে এ প্রসঙ্গে মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) গভীর রাতে নিজ বাসভবনের সামনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নানা বিষয় নিয়ে কথা বলেন তিনি।তিনি বলেন, ‘মিথ্যা ছড়িয়ে শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান। একটি গোষ্ঠী তার কমিটির দুর্নাম করতে উঠেপড়ে লেগেছে বলে তার অভিযোগ। এসময় শিল্পী সমিতি নির্বাচনে বিরোধী প্যানেলের আলোচিত কয়েকজন সদস্যের দিকে ইঙ্গিত করে মন্তব্যও করেছেন জায়েদ।

সংবাদ সম্মেলনে জায়েদ আরও বলেন, শিমুর হত্যাকারীকে যদি র‍্যাব আজকে না ধরতো তাহলে আমার বিরুদ্ধে আন্দোলন হতো এফডিসিতে। আমার কি হইতো খালি চিন্তা করেন একবার! আমি বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাতে চাই র‍্যাব ও পুলিশকে।

শিল্পী সমিতির নির্বাচন ও শিমু হত্যাকাণ্ড ইস্যুতে জায়েদ খান বলেন, আমি নামধরেই বলতে চাই যে রিয়াজ ভাই কাঞ্চন ভাই আপনারা সম্মানিত মানুষ। এই নোংরামীগুলো কি আপনারা দেখছেন না? এগুলো কেন বন্ধ করছেন না আপনারা? আমি কাঞ্চন ভাইকে আবারও বলবো, আপনি একুশে পদক পাওয়া সম্মানিত লোক, এই নোংরামি বন্ধ করেন। এই রিয়াজ ভাই আজকে অভিনয় করে মেকি কান্না কাঁদতেছে। অথচ এই শিমু-খোকনদের মত শিল্পীদের সহযোগী তালিকায় নেয়ার সময় তো কাঞ্চন ভাই, রিয়াজ ভাই, ফারুক ভাই, আলমগীর ভাই সবাই ছিলেন। এটা সবাই জানে। তখন তো তারা কেউ কোনো আপত্তি করেননি।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, রোববার (১৬ জানুয়ারি) সকাল থেকে শিমু নিখোঁজ ছিলেন।

প্রসঙ্গত, অভিনেত্রী শিমুর ১৯৯৮ সালে সিনেমায় অভিষেক হয়। তিনি প্রায় ২৫টি সিনেমায় অভিনয় করেছেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া অর্ধশতাধিক নাটকে অভিনয় করেছেন তিনি। এ ছাড়া তিনি একটি টিভি চ্যানেলের মার্কিটিং বিভাগে কর্মরত ছিলেন।

Related Articles

Back to top button