বিনোদন

তৃতীয় ঢেউয়ে তলিয়ে গেল কয়েক হাজার কোটি

বছরের শুরুতেই প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা ক্ষতির ধাক্কা সামলাতে হল বলিউড ইন্ডাস্ট্রিকে। প্রাক্করোনা পর্বে প্রতি বছর চার হাজার কোটি টাকারও বেশি ব্যবসা হত বক্স অফিসে।

সেই সোনালি দিন ফিরে আসবে কি না, তা নিয়ে সন্দিহান ফিল্ম দুনিয়া। করোনার একের পর এক তরঙ্গ নষ্ট করে দিচ্ছে ব্যবসার স্থিরতা। গত বছর দীপাবলি থেকে পরপর ছবি রিলিজ়ের পরিকল্পনা করেছিলেন নির্মাতারা। কিন্তু দু’মাসের মধ্যেই সেই পরিকল্পনা ধাক্কা খেল। গত নভেম্বরে ‘সূর্যবংশী’, ডিসেম্বরে দক্ষিণী ছবি ‘পুষ্পা’ যেটুকু হাসি ফুটিয়েছিল ফিল্ম ব্যবসায়ীদের মুখে, তৃতীয় ঢেউ তা মিলিয়ে দিল। ফের বাতিল হল বড় বড় রিলিজ়, পিছিয়ে গেল একাধিক ছবির শুটিং।

৩১ ডিসেম্বর ‘জার্সি’ এবং জানুয়ারির শুরুতে ‘ট্রিপল আর’-এর মুক্তি বাতিল হওয়া দিয়ে ২০২২ সালের ক্ষতির খতিয়ান শুরু হয়েছে। দু’টি ছবির প্রচারে বড় অঙ্কের টাকা ইতিমধ্যেই খরচ হয়ে গিয়েছিল। নতুন করে রিলিজ়ের পরিকল্পনার সময়ে ফের খরচের বোঝা টানতে হবে নির্মাতাদের। পরিচালক আনিস বাজ়মির মতে, ‘‘এই দুই ছবির প্রচারে হওয়া ক্ষতির অঙ্ক দেখে এখন কোনও নির্মাতাই আগামী ছবির প্রচারে লগ্নি করতে চাইছেন না। ছবি আদৌ মুক্তি পাবে কি না, তা নিয়ে আশঙ্কায় রয়েছেন সকলে।’’

এসএস রাজামৌলীর মাল্টিস্টারার ছবি ‘ট্রিপল আর’-এর ব্যবসার উপরে বড় ভরসা ছিল ইন্ডাস্ট্রির। যেমন ভরসা ছিল প্রভাসের ‘রাধে শ্যাম’ এবং অক্ষয়কুমারের ‘পৃথ্বীরাজ’-এর উপরে। এই দু’টি বড় ছবি জানুয়ারিতে মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল, যা বাতিল হয়েছে।

পিছিয়ে গিয়েছে সলমন খান-ক্যাটরিনা কাইফের ‘টাইগার থ্রি’, শাহরুখ খানের ‘পাঠান’, রণবীর সিংহ-আলিয়া ভট্টর ‘রকি অওর রানি কী প্রেম কহানি’র শুটিং। ছবির শুটিং বাতিল হলেও ক্ষতির ভার বইতে হয় নির্মাতাদের। ট্রেড অ্যানালিস্টদের মতে, ছবির রিলিজ় এবং শুটিং পিছিয়ে যাওয়ায় জানুয়ারিতেই ১৫০০ কোটি টাকা ক্ষতির মুখোমুখি হয়েছে ইন্ডাস্ট্রি। রিলায়্যান্স এন্টারটেনমেন্টের সিইও শিবাশিস সরকার বলছেন, ‘‘বছরের শুরুতেই বড় ক্ষতি গুনতে হচ্ছে। আশা করছি, এপ্রিল থেকে পরিস্থিতির খানিক উন্নতি হবে।’’ রিলায়্যান্সের প্রযোজনায় ‘এইটিথ্রি’ ডিসেম্বরে মুক্তি পেলেও, সে ছবির ব্যবসা ইন্ডাস্ট্রির হাল ফেরাতে ব্যর্থ।

ফেব্রুয়ারি মাসে সঞ্জয় লীলা ভন্সালীর ‘গঙ্গুবাই কাথিয়াওয়াড়ি’ মুক্তি পাওয়ার কথা। কিন্তু সেখানেও প্রশ্নচিহ্ন ঝুলে রয়েছে। যদিও মঙ্গলবার অক্ষয়কুমার ঘোষণা করেন, মার্চ মাসে তাঁর ‘বচ্চন পাণ্ডে’ সিনেমা হলে মুক্তি পাবে। করোনার জের যেমন কাটছে না, তেমনই ওটিটিতে সিনেমা রিলিজ় করে দেওয়ার প্রবণতাও জারি রয়েছে।

তবে ‘সূর্যবংশী’ এবং ‘পুষ্পা’ প্রমাণ করে দিয়েছে দর্শক সিনেমা হলের বিনোদনে আস্থা রাখছেন এখনও। সেটুকুই আশার কথা।

Related Articles

Back to top button