আলোচিত সংবাদ

আত্মীয়ের বাড়ি নিয়ে যাওয়ার নাম করে বৃদ্ধা মা’কে স্টেশনে ফেলে পলাল ছেলে, অঝোরে কাঁদছে মা

সোশ্যাল মিডিয়ার আরো দুটি নাম আছে যথা নেট দুনিয়া এবং নেট মাধ্যম। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা ঘরে বসেই সিনেমা থেকে শুরু করে খেলাধুলা নিমিষেই উপভোগ করতে পারি।

এই সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার পূর্বাভাস বা বন্যা, ভারী বৃষ্টিপাত সম্পর্কিত তথ্য নিমিষেই জেনে যেতে পারি।

এছাড়া এই নেট দুনিয়া আছে বলেই কোনো প্রতিভা একেবারে শুরুতেই শেষ হয়ে যায় না। প্রতিভাবান ব্যক্তিরা এই নেট দুনিয়াতে নিজেদের প্রতিভার ভিডিও আপলোড করেন এবং সেই ভিডিওটি নেটিজেনদের মধ্যে ভাইরাল হলে ওই প্রতিভাবান ব্যক্তি রাতারাতি স্টার হয়ে যান।

সোশ্যাল মিডিয়া হলো এমন একটি প্ল্যাটফরম যেখানে যে কোন মুহূর্তে যে কোন কিছু ভাইরাল হয়ে যেতে পারে। আপনি আগে থেকে হয়তো জানতে পারবেন না কোন ভিডিও হঠাৎ করে ভাইরাল হয়ে গেল।

এই ভাইরাল তালিকায় থাকে নাচ এবং গানের ভিডিও। তার সঙ্গেই থাকে ছোটদের বিভিন্ন কাণ্ডকারখানা এবং বিভিন্ন মজার মজার ঘটনার ভিডিও। এছাড়াও কিছু কিছু ভিডিও থাকে পশু পাখির ভিডিও। কিন্তু কিছু কিছু ভিডিও আমাকে ভাবতে বাধ্য করে। কয়েকটি ভিডিও আমাদের একেবারে হতচকিত করে দেয়।সোশ্যাল মিডিয়া বর্তমানে এমন একটি পথ আমাদের জন্য খুলে দিয়েছে, যার মাধ্যমে আমরা নিজেদের প্রতিভা তুলে ধরতে পারি পৃথিবীর কাছে।

অভিযোগ, এক আত্মীয়ের বাড়ি নিয়ে যাবে বলে সরযূদেবীর ছেলে কৃষ্ণ মণ্ডল তাঁকে হাবরা স্টেশনে নিয়ে আসে। স্টেশনের এক কোণে মাকে বসিয়ে রেখে চলে যায় কৃষ্ণ। মাকে কিছুক্ষণ বসতে বলেছিল সে। কিন্তু সারাদিন ওইখানেই বসে থেকেছেন বৃদ্ধা, তবু কেউ আসেনি। আশপাশের দোকানদাররা বৃদ্ধার মুখ থেকে সবটা শোনেন, তাঁকে কিছু খাবারও দেন। তারপর খবর দেওয়া হয় হাবরা পুরসভায়।

চেয়ারম্যান নারায়ণ সাহা এসে বৃদ্ধার সঙ্গে কথা বলেন এবং বৃদ্ধাকে হাবড়ার একটি বৃদ্ধাশ্রমে নিয়ে যান। বর্তমানে বৃদ্ধা মায়ের ঠিকানা হাবড়া বৃদ্ধাশ্রম। তবে ঘটনার পর ছেলের ভূমিকা নিয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন। ছেলে কৃষ্ণ মণ্ডল ফিরবে, তাঁকে নিয়ে যাবে, এই বিশ্বাস নিয়েই বৃদ্ধাশ্রমে দিনযাপন শুরু করলেন বৃদ্ধা। ভিডিওটি বর্তমানে ইউটিউবে রয়েছে, Shine TV 24×7 নামক চ্যানেলে ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে। ৫০০ হাজারেরও বেশি মানুষ ভিডিওটি দেখেছেন।

Related Articles

Back to top button