আলোচিত সংবাদ

বোয়াল মাছের পোনা উৎপাদন করে তাক লাগালেন কুমিল্লার কালু

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় বোয়াল মাছের পোনা উৎপাদন করে তাক লাগিয়েছেন সামছুদ্দিন কালু। উপজেলার বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারের স্বত্বাধিকারী তিনি।

সামছুদ্দিন কালু একজন সফল মৎস্য চাষিই নন, তিনি নাঙ্গলকোট উপজেলার টানা দুবারের নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান। এ বছর কৃত্রিমভাবে বোয়াল মাছের পোনা উৎপাদন করে সফল হয়েছেন তিনি। বর্তমানে খামারটিতে রেণু পোনা থেকে ৪-৬-৮ ইঞ্চি সাইজের পোনা রয়েছে, যা চাষের পুকুরে দেওয়া হয়েছে।

বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারে গিয়ে দেখা যায়, জাল দিয়ে তুলে সাইজ দেখছেন সামছুদ্দিন কালু। এগুলোকে রেণু পোনা থেকে কালচারের পুকুরে নেওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। আগামী বছর কৃত্রিমভাবে বোয়ালের রেণু পোনা উৎপাদন করে কুমিল্লা জেলাসহ সারা দেশে বোয়াল মাছের পোনা বিক্রি করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।

বিসমিল্লাহ মৎস্য বীজ উৎপাদন খামারে মাছ উৎপাদন প্রক্রিয়াজাত করার মাধ্যমে একজন সফল মৎস্য চাষি হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে স্বর্ণপদকসহ একাধিক পুরষ্কার লাভ করেছেন সামছুদ্দিন কালু। সর্বশেষ এ বছর কৃষি ক্ষেত্রে বিশেষ ব্যক্তি হিসেবে কৃষি উৎপাদন এআইপি সম্মাননা পেয়েছেন তিনি।

সামছুদ্দিন কালু জানান, বোয়াল মাছ এখন বিলুপ্ত। শখের বশে বোয়াল মাছ চাষ করার ইচ্ছে জাগে। যেই চিন্তা, সেই কাজ। নদী থেকে মাছ সংগ্রহ করে বোয়ালের কৃত্রিম প্রজনন শুরু করি। ৩ বছর কাজ করার পর আমি সফল হয়েছি। বর্তমানে রেণু উৎপাদন করে পুকুরে চাষ করি ৪-৬-৮ ইঞ্চি সাইজের বোয়াল মাছ।

তিনি বলেন, বোয়াল মাছের কোনো খাবার দিতে হয় না দেশীয় প্রজাতির অন্য ছোট মাছ খেয়ে এরা বড় হয়। পাশাপাশি এ খামারে কৃত্রিম প্রজননের মাধ্যমে পাঙাশ, রুই, মৃগেল, কাতলা, সিলভার কার্প, ব্রিগহেড, কালি বাউস, সরপুঁটি, কৈ, শিং, মাগুর, টেংরা মাছসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছের পোনা উৎপাদন করে থাকি। যা দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করা হয়।

কুমিল্লা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা শরীফ উদ্দিন বলেন, সামছুদ্দিন কালু মাছ উৎপাদন প্রক্রিয়াজাত করার মাধ্যমে একজন সফল মৎস্য চাষি হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে স্বর্ণপদকসহ একাধিক পুরষ্কার পেয়েছেন। বোয়ালের পোনা উৎপাদনে উপজেলা মৎস্য অফিস থেকে সামছুদ্দিন কালুকে সকল প্রকার সহযোগিতাসহ বিভিন্ন পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।-বাসস

Related Articles

Back to top button