আলোচিত সংবাদ

মাকে খুন করে ঘরে পুঁতে রাখে ছেলে, ৫ দিন পর উদ্ধার মরদেহ

রংপুরের কাউনিয়ায় ঘরের মেঝেতে মাটিচাপা দিয়ে রাখা এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত বৃদ্ধা জমিলা বেগম (৬০) হারাগাছ ইউনিয়নের সিট নাজিরদহ গ্রামের লাল মিয়ার স্ত্রী।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে জামিল মিয়াকে (২২) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।
বুধবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে সিট নাজিরদহ গ্রামে নিহতের বাড়ির ঘরের মেঝে খুঁড়ে এই মরদেহ উদ্ধার করা হয়। নিখোঁজের

পাঁচদিন পর ওই বৃদ্ধার বাড়ির ঘর থেকে আসা দুর্গন্ধে স্থানীয়দের মনে সন্দেহ হয়। পরে ঘরের মেঝে খুঁড়ে তার লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন গ্রামবাসী। স্থানীয়রা জানায়, জামিলের বাবা আরেকটি বিয়ে করে অন্যত্র বসবাস করেন। ওই বাড়িতে জামিল ও তার মা থাকতেন।

গত শনিবার (২০ আগস্ট) সকাল থেকে জমিলার খোঁজ মিলছিল না। এরপর থেকে তার স্বজনরা বিভিন্নস্থানে খোঁজখবর নিয়েও জমিলার সন্ধান পায়নি।অবশেষে বুধবার বিকেলে জমিলার বাড়িতে গিয়ে তার ঘরের মেঝে উঁচু দেখেন এবং পচা গন্ধ ভেসে আসায় স্বজনদের সন্দেহ হয়। এ

সময় স্থানীয়দের সহায়তায় জমিলার ছেলে জামিলকে আটক করে পুলিশে খবর দেন তারা। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদেহ উদ্ধার করে।লাশ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে রংপুর জেলার সহকারী পুলিশ সুপার আশরাফুল আলম পলাশ জানান, পারিবারিক বিরোধের কারণে গত শুক্রবার (১৯ আগস্ট) রাতে জামিল তার মায়ের কক্ষে ঢুকে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে। এরপর ঘরের মেঝে খুড়ে পুঁতে রাখেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জামিল মাকে হত্যা করে পুঁতে রাখার কথা স্বীকার করেছেন। তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Related Articles

Back to top button