আলোচিত সংবাদ

সন্ধ্যায় দাফন, রাতেই শাবনুরের লাশ চুরির চেষ্টা

নাটোরের বড়াইগ্রামে দাফনের কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে কবর খুঁড়ে শাবনুর খাতুন (২২) নামে এক গৃহবধূর লাশ চুরির চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার মধ্যরাতে উপজেলার পারকোল কেন্দ্রীয় কবরস্থানে এ ঘটনা ঘটে।নিহত

শাবনুর জোনাইল ইউনিয়নের সংগ্রামপুর গ্রামের চাঁদ মিয়ার স্ত্রী ও পারকোল গ্রামের আলম শেখের মেয়ে।শুক্রবার রাতে স্বামীর বাড়ি থেকে ওই গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহতের স্বামী ও শ্বশুর এটি আত্মহত্যা

বলে জানালেও মৃত্যুর সময় তার দুই পা মাটিতে ঠেকে থাকায় এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে দাবি করে আসছিলেন শাবনুরের পিতা আলম শেখ। জানা যায়, প্রায় সাত বছর আগে সংগ্রামপুর গ্রামের নবাব আলীর ছেলে চাঁদ মিয়ার সঙ্গে দেড় লাখ টাকা যৌতুক দিয়ে পারকোল গ্রামের আলম শেখের মেয়ে শাবনুরের বিয়ে হয়।

কিন্তু বিয়ের পর থেকেই আরও টাকার জন্য শাবনুরের ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হতো। শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বামীর বাড়িতে নিজ শোবার ঘর থেকে তার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করলে শনিবার সন্ধ্যায় পারকোল কেন্দ্রীয় গোরস্থানে তার লাশ দাফন করা হয়।

রোববার সকালে শাবনুরের স্বজনরা তার কবর জিয়ারত করতে গেলে কবরটি খনন করা দেখতে পান। এ সময় কিছু পরিমাণ মাটিসহ কবরের বাঁশ ও মাটি খননের কাজে ব্যবহৃত কোদাল পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছিল। পরে থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে কবরটি পরিদর্শন করেন এবং কবরের মধ্যে লাশটি অক্ষত অবস্থায় পান। এরপর স্বজনরা কবরটি পুনরায় মাটি দিয়ে মেরামত করে দেন।

এ ব্যাপারে মাঝগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম জানান, কে বা কারা রাতের আঁধারে লাশটি চুরির চেষ্টা করেছিল। কিন্তু হয়তো লোকজনের যাতায়াত বা অন্য কোনো কারণে তারা লাশ চুরি করতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে গেছে।বড়াইগ্রাম থানার ওসি আবু সিদ্দিক বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে জানান, খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তবে দুর্বৃত্তরা মাটি খনন করলেও লাশ নিতে পারেনি। কারা এ ধরনের ধৃষ্টতাপূর্ণ কাজ করতে পারে সে ব্যাপারে পুলিশ তদন্তে নেমেছে। আশা করি খুব শিগগিরই দোষীরা আটক হবে।

Related Articles

Back to top button