আলোচিত সংবাদ

পরকীয়ায় জড়ানো স্ত্রীকে কোমরে দড়ি বেঁধে থানায় নিলেন স্বামী

পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় পাওয়ার পর স্ত্রীকে কোমরে দড়ি বেঁধে থানায় নিয়ে গেছেন স্বামী। মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলার নন্দকুমার থানায় এ ঘটনা ঘটে।জানা গেছে, নন্দকুমার এলাকার শেখ মনিরুল ও সুতাহাটার অর্পিতা সামন্ত ৭ বছর আগে ভালোবেসে বিয়ে করেন। এর আগেও অর্পিতার বিয়ে হয়েছিল, সেই ঘরের একটি সন্তানও রয়েছে তার। তবে কোনো কারণে বিচ্ছেদ

হয় তাদের। এরপর বাবার বাড়িতে ছিলেন তিনি। সেখানে থাকা অবস্থায় পরিচয় হয় মনিরুলের সঙ্গে। পরে বিয়ে করেন তারা।সম্প্রতি শেখ মনিরুল অভিযোগ করেন, অর্পিতা একটি পরকীয়া সম্পর্কে জড়িয়েছেন। মনিরুলের বাড়িতেও যাতায়াত ছিল কলেজপড়ুয়া পরকীয়া প্রেমিকের। তবে অর্পিতা এ অভিযোগ অস্বীকার করলে মনিরুল স্ত্রীর ওপর নজর রাখতে শুরু করেন।গত শনিবার (২৭ আগস্ট) অর্পিতা বাবার বাড়ি চলে

যাযন। এরপর মনিরুল বারবার তাকে আসার জন্য অনুরোধ করেন। তবে অর্পিতা জানান মঙ্গলবার ফিরবেন। এতে সন্দেহ হয় শেখ মনিরুলের। নজর রাখতে শুরু করেন স্ত্রীর ওপর। একপর্যায়ে অর্পিতার বাবার বাড়িতেই আপত্তিকর অবস্থায় পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গে ধরে ফেলেন তিনি।পরে কোমরে দড়ি বেঁধে অর্পিতাকে নন্দকুমার থানায় নিয়ে আসেন এবং পুলিশের হাতে তুলে দেযন। পরকীয়া প্রেমিকের সঙ্গেই স্ত্রীর বিয়ে দেবেন বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুন> আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে দেশে কোনো সংকট নেই, সংকট আছে বিএনপিতে এবং তাদের নেতৃত্বে ও সিদ্ধান্তে। তিনি রোববার সকালে রাজধানীর উত্তরার দিয়াবাড়ীতে বিএনপি মহাসচিবের নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে যে সংকটের কথা বলেছেন তার জবাবে এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতাদের চাওয়া আর আবদারের

কোনো শেষ নেই। তারা কখনো নিরপেক্ষ সরকার, কখনো নির্বাচনকালীন সরকার, আবার কখনো তত্বাবধায়ক সরকার এবং মাঝে মাঝে জাতীয় সরকার নিয়ে কথা বলেন। আসলে বিএনপি নেতারা কি চান তা তারা নিজেরাও জানেন না। বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আবারও বলেন, নির্বাচন হবে নির্বাচন কমিশনের অধীনে, সরকারের অধীনে নয়; সরকার শুধু রুটিন দায়িত্ব পালন করবে।তিনি

বলেন, নির্বাচন কমিশন একটি স্বাধীন ও সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। নির্বাচনকালে স্বাধীন ও কর্তৃত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনে নির্বাচন কমিশনকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে সরকার। ওবায়দুল কাদের বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নতুন করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের যে কথা বলছেন, সেটি একটি মীমাংসিত বিষয়। সুতরাং এ নিয়ে নতুন করে আলোচনার কোনো সুযোগ নেই।

Related Articles

Back to top button