অপরাধ

নবজাতককে বাঁশঝাড়ে ফেলে পালাল মা!!

হাসপাতা’লে সন্তান প্রসবের পর এক দিনের শি’শুকে বাঁশঝাড়ে ফেলে মা পালিয়ে গেছে। শি’শুটি ভুরুঙ্গামা’রী হাসপাতা’লের গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গতকাল শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে ৮টার সময় উপজে’লার গোপালপুর গ্রামের তহিদুল ইস’লামের স্ত্রী’ মোসা. খাদিজা খাতুন (২০) পরিচয়ে সাত মাসের গর্ভবতী এক নারী প্রসবজনিত সমস্যার কারণে হাসপাতা’লে ভর্তি হন। ভর্তির পর তিনি একটি কন্যাসন্তান প্রসব করেন, যার নাম দেওয়া হয় সুবর্ণা। সন্তান প্রসবের পর শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) হাসপাতাল থেকে কোনো ছাড়পত্র না নিয়েই সন্তানসহ সবার অজান্তে তিনি পালিয়ে গিয়ে এক দিনের ওই শি’শুটিকে হাসপাতা’লের পাশের একটি বাঁশঝাড়ে ফেলে দেন।

শি’শুটির কা’ন্নার আওয়াজ শুনে এলাকার লোকজন শি’শুটিকে উ’দ্ধার করে আবারও হাসপাতা’লে ভর্তি করেন গোপালপুর গ্রামের আলী হোসেনের স্ত্রী’ শাপলা বেগম। শি’শুটি বর্তমানে হাসপাতা’লের গাইনি বিভাগে চিকিৎসাধীন রয়েছে এবং শাপলা বেগম দত্তক নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

এলাকাবাসী জানান, অ’বৈধ সন্তান হওয়ার কারণে হয়তো ভূমিষ্ঠ শি’শুকে ফেলে পালিয়ে গেছে সন্তানের মা। উপজে’লা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মক’র্তা ডা. এ এস এম সায়েম জানান, ভূমিষ্ঠ শি’শুটি অ’পরিণত হওয়ায় হাসপাতা’লে চিকিৎসাধীন। ঘটনাটি থা’না পু’লিশকে জানানো হয়েছে। শি’শুটির প্রকৃত পরিচয় পাওয়া না গেলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা নিয়ে দত্তক বা শি’শু সদনে হস্তান্তর করা হবে।

ভুরুঙ্গামা’রী থা’নার ভা’রপ্রাপ্ত কর্মক’র্তা (ওসি) মুহা. আতিয়ার রহমান বলেন, হাসপাতা’লের রেজিস্টারে লিপিবদ্ধ নামের তালিকা অনুযায়ী শি’শুটির মা ও বাবার পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। এখনো পাওয়া যায়নি। পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Back to top button