অন্যান্য

মুনিয়ার মৃ’ত্যু র’হস্য নিয়ে যা জানাল ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা

ফরেনসিক রিপোর্টেই উন্মোচিত হবে মুনিয়ার মৃ’ত্যুর প্রকৃত র’হস্য। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভিসেরা, ডিএনএ ও মাইক্রোবায়োলজির পরীক্ষা শেষে রিপোর্ট পেতে সময় লাগবে দেড় থেকে দুই মাস।

এদিকে দোষীর সাজা নিশ্চিতে ফরেনসিক রিপোর্টই প্রধান হাতিয়ার বলে মনে করছেন আইনজীবীরা। দ্রুত মুনিয়ার ময়নাত’দন্ত রিপোর্ট নিয়ে ত’দন্ত কর্মক’র্তাকে তৎপর হওয়ার তাগিদও তাদের।

কলেজশিক্ষার্থী মোসারাত জাহান মুনিয়ার ময়নাত’দন্ত শেষ হওয়ার পর কে’টে গেছে ৫ দিন। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে রিপোর্ট এখনও হাতে পায়নি পু’লিশ।

রিপোর্ট পেতে কেন এই বিলম্ব? প্রশ্নের জবাবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মুনিয়াকে বিষ প্রয়োগ কিংবা ধ’’ র্ষ’ ণ করা হয়েছিল কিনা এমন বেশ কয়েকটি বিষয় পরীক্ষার জন্য পু’লিশের পক্ষ থেকে সুপারিশ করা হয়েছে। যার জন্য প্রয়োজন ভিসেরা, ডিএনএ ও মাইক্রো বায়োলজিক্যাল পরীক্ষা, যা সময় সাপেক্ষ। এ কারণেই ময়নাত’দন্ত রিপোর্ট পেতে দেড় থেকে দুই মাস অ’পেক্ষা করতে হবে।

শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতা’লের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান অধ্যাপক সেলিম রেজা বলেন, প্রাসঙ্গিক ভিসেরা পাঠিয়েছি। সেগুলোর রিপোর্ট আসতে এক থেকে দেড় মাস সময় লাগবে। এ ছাড়া ডিএনএ প্রোফাইলিংয়ের ব্যাপারটাও ১২ সপ্তাহের মতো লাগবে। মাইক্রো বায়োলজিক্যালসহ সব মিলিয়ে একটু সময় লাগবে।

ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সময়সাপেক্ষ হলেও এসব পরীক্ষার মাধ্যমেই জানা যাবে মৃ’ত্যুর আসল কারণ।

অধ্যাপক সেলিম রেজা বলেন, এ রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃ’ত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

এদিকে, মুনিয়ার মৃ’ত্যুর ঘটনায় তার স্বজনদের করা আত্মহ’ত্যার প্র’রোচনার মা’মলার ত’দন্ত ও বিচারকাজে এই ফরেনসিক রিপোর্ট’কেই প্রধান হাতিয়ার ভাবছেন আইন সংশ্লিষ্টরা। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট ত’দন্ত কর্মক’র্তার তৎপর হওয়ার পরাম’র্শও তাদের।

সুপ্রিম কোর্টের সিনিয়র আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, খুব দ্রুত ময়নাত’দন্তের রিপোর্ট পাওয়া একটা বিচারের অংশ। রিপোর্ট পাওয়ার জন্য বেশি সময় লাগার কথা না।

গত ২৬ এপ্রিল রাতে গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মুনিয়ার ম’রদেহ উ’দ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মুনিয়ার বড় বোন বাদী হয়ে আত্মহ’ত্যার প্র’রোচনার অ’ভিযোগে গুলশান থা’নায় মা’মলা করেন। মা’মলার একমাত্র আ’সামি বসুন্ধ’রা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীর। আগামী ৩০ মে এ মা’মলার ত’দন্ত প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য রয়েছে।

Back to top button