অন্যান্য

তরুণের সঙ্গে পর’কী’য়া! ন’গ্ন করে গ্রাম ঘোরানো হলো নারীকে

ভা’রতের ত্রিপুরায় বিবাহ বহির্ভূত স’ম্পর্ক থাকায় এক নারীকে ন’গ্ন করে গোটা গ্রাম ঘোরানো হয়েছে। মঙ্গলবারের এমন কা’ণ্ডের পর ওই নারী আত্মহ’ত্যা করেছেন। ভা’রতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে এমনই তথ্য জানা গেছে। বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসার পরই তৎপরতা শুরু হয়। ঘটনায় জড়িত থাকার অ’ভিযোগে শুক্রবার সাতজন প্রতিবেশীকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।

ভা’রতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, দেশটির দক্ষিণ ত্রিপুরায় সাব্রুমের বেটাগা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে। ওই বিবাহিত নারী এবং এক তরুণের সঙ্গে স’ম্পর্কে জড়িয়ে পড়ার অ’ভিযোগ ওঠে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় একটি সালিস সভা ডা’কা হয়। সেখানে ওই নারীর পর’কী’য়া নিয়ে আ’পত্তিকর ভিডিও দেখানো হয় বড় স্ক্রিনে। এরপরই ওই নারীকে জুতো দিয়ে মা’রা হয় এবং হে’নস্তা করা হয় বলে অ’ভিযোগ। সেখানেই শেষ নয়, নারীকে ন’গ্ন করে গোটা গ্রাম ঘোরানো হয়। তারও ভিডিও রেকর্ডিং করেন কয়েকজন।

সংবাদ প্রতিদিনের খবরে বলা হয়, এই ঘটনা সামনে আসতেই ত্রিপুরা হাই’কোর্টের প্রধান বিচারপতি এএ কুরেশি এবং বিচারপতি এস তালাপাত্রের ডিভিশন বেঞ্চে একটি স্বতপ্রণোদিত মা’মলা শুরু হয়। সেখানে ওই মহিলাকে ন’গ্ন করে ঘোরানোর ভিডিওগুলো সামনে আসে। বিষয়টি নিয়ে মুখ্যসচিব, ডিজিপি, ত্রিপুরা দক্ষিণের এসপি এবং ওই এলাকার এসডিপিও-র কাছে পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট তলব করেছে আ’দালত।

এদিকে, আ’দালতের এই প্রক্রিয়া শুরুর পরের দিনই খবর আসে, নির্যাতিতা নারী আত্মহ’ত্যা করেছেন। এরপরই ওই নারীর পরিবার প্রতিবেশীসহ কয়েক জনের বি’রুদ্ধে অ’ভিযোগ দায়ের করা হয়। পু’লিশ তাদের মধ্যে কয়েক জনকে গ্রে’প্তারও করেছে বলে বলছে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো।

দক্ষিণ ত্রিপুরা পু’লিশের এসপি কুলওয়ান্ট সিং বলেন, পু’লিশ এরই ম মধ্যে তথ্য প্রমাণ সংগ্রহ করেছে। সেই সঙ্ড়ে কয়েকজন প্রতক্ষ্যদর্শীর বয়ান রেকর্ড করা হয়েছে। এগুলোর উপর ভিত্তি করে কয়েকজনকে গ্রে’প্তার করা হয়েছে।

Back to top button