জাতীয়

হল-মা’র্কের জেসমিন ইস’লামের জামিন প্রশ্নে হাই’কোর্টে শুনানি ৭ জুলাই

ভু’য়া এলসির বিপরীতে জনতা ব্যাংকের ৮৫ কোটি ৮৭ লাখ ৩৩ হাজার ৬১৬ টাকা আত্মসাতের অ’ভিযোগের মা’মলায় হলমা’র্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান জেসমিন ইস’লামকে কেন জামিন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে জারি করা রুলের ওপর আগামী ৭ জুলাই হাই’কোর্টে শুনানি।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি সরদার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীরের হাই’কোর্ট বেঞ্চ বৃহষ্পতিবার শুনানির দিন ধার্য করে আদেশ দেন। জেসমিন ইস’লামের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট মুনসুরুল হক চৌধুরী। দুদকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট খুরশীদ আলম খান।

অর্থ আত্মসাতের অ’ভিযোগে জেসমিন ইস’লামসহ ১৬ জনের বি’রুদ্ধে ২০১৬ সালের ১ নভেম্বর মতিঝিল থা’নায় মা’মলা করে দুদক। ওইদিনই বিকেলে রাজধানীর বংশাল থেকে তাকে গ্রে’প্তার করা হয়। মা’মলার অ’ভিযোগে বলা হয়, হলমা’র্কের চেয়ারম্যান ও এমডি তাদের প্রতিষ্ঠানের বেতনভূক্ত কর্মচারি মো. জাহাঙ্গীর আলমকে আনোয়ারা স্পিনিং মিলসের মালিক এবং মীর জাকারিয়াকে ম্যাক্স স্পিনিং মিলসের মালিক সাজিয়ে ভু’য়া কাগজপত্র বানিয়ে জনতা ব্যাংক থেকে ৮৫ কোটি ৮৭ লাখ ৩৩ হাজার ৬শ ১৬ টাকা তুলে নিয়ে আত্মসাৎ করা হয়েছে। এ মা’মলায় ২০১৭ সালের ১৭ আগষ্ট বিচারিক আ’দালত তার জামিন আবেদন খারিজ করে। এরপর তিনি হাই’কোর্টে আবেদন করেন। হাই’কোর্ট একই বছরের ৫ নভেম্বর তার জামিন প্রশ্নে রুল জারি করেন। এ রুলের ওপর শুনানি শেষে ২০১৯ সালের ১০ মা’র্চ জেসমিন ইস’লামের জামিন মঞ্জুর করেন হাই’কোর্ট। এই জামিন বাতিল চেয়ে দু’র্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আবেদন করে। এ আবেদনে আপিল বিভাগ ওই বছরের ১৬ জুন এক আদেশে জেসমিন ইস’লামের জামিন স্থগিত করে চার সপ্তাহের মধ্যে আত্মসম’র্পনের নির্দেশ দেন। এরপর তিনি আত্মসম’র্পন করেন। এ অবস্থায় তিনি জামিন চেয়ে এবছর আবেদন করেন। এ আবেদনে আ’দালত রুল জারি করেন। এ রুলের ওপর আগামী ৭ জুলাই শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

Back to top button