অন্যান্য

আ’পত্তিকর ভিডিও ধারণ করে গৃহবধূর সর্বনাশ করলেন যুবক

বগুড়ার শেরপুরে বিয়ের প্রলো’ভন দেখিয়ে এক গৃহবধুর অশ্লীল ভিডিও হাতিয়ে নিয়ে ব্লাকমেইল করার অ’ভিযোগে এক প্রতারককে গ্রে’প্তার করেছে জে’লা গোয়েন্দা (ডিবি)।

গ্রে’ফতারকৃত যুবকের নাম মাহমুদ মুন্না (২৫)। সে পৌরসভা’র পূণ্যাতলা শ্রীরামপুর গ্রামের জমশের আলীর ছে’লে। সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) তাকে প’র্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ মা’মলা দায়ের করে আ’দালতে প্রেরণ করা হয়েছে। এর আগে রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) রাতে শেরপুর বাসষ্ট্যান্ড শেরপুর প্লাজার সামনে থেকে তাকে গ্রে’ফতার করা হয়।

জানা যায়, স্থানীয় একটি মোবাইলের দোকানে ওই গৃহবধূকে প্রথম দেখাতেই পছন্দ করে মুন্না। পরে গো’পনে গৃহবধুর ফেসবুক আইডি সংগ্রহ করে ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠায় এবং পরবর্তীতে তারা একে অ’পরের সাথে কথা বলা শুরু করেন। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ভিডিও-অডিও কলে কথা বলাসহ প্রে’মের স’ম্পর্ক গড়ে ওঠে। স’ম্পর্কের এক পর্যায়ে গৃহবধূকে বিয়ের প্রলো’ভন দেখিয়ে গো’পন ছবি ও ভিডিও দাবি করে মুন্না।

এতে প্রথমে এসব কাজে রাজি না হলেও এক পর্যায়ে মুন্নার বারবার বিয়ের প্রলো’ভনের কথা বিশ্বা’স করে আ’পত্তিকর অবস্থায় ভিডিও কলে আসতে রাজি হোন ওই গৃহবধূ। এই সুযোগে অ্যাপের মাধ্যমে আ’পত্তিকর ছবি ও ভিডিও ধারণ করে রাখে মুন্না। পরে সেই ভিডিও ও ছবি ছড়িয়ে দেওয়ার ভ’য় দেখিয়ে ওই গৃহবধূকে শারিরীক স’ম্পর্ক বাধ্য করার জন্য ব্লাক মেইল করতে থাকে।

একপর্যায়ে ওই গৃহবধু বগুড়া ডিবি পু’লিশের কাছে লিখিত অ’ভিযোগ দায়ের করে। পরে ডিবি পু’লিশের সাইবার টিম তথ্য প্রযু’ক্তির সাহায্যে শেরপুর থেকে মুন্নাকে গ্রে’ফতার করে। শেরপুর থা’না অফিসার ইনচার্জ শহিদুল ইস’লাম জানান, প’র্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১২ মা’মলা দায়ের করে আ’দালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

Back to top button